‘প্রযুক্তি-এসএমই খাতে প্রশিক্ষণের সুযোগ বাড়াতে কাজ করছে সরকার’

দেশে বর্তমানে ৬ থেকে ৭ লাখ আইটি খাতের ফ্রিল্যান্সার কাজ করছেন যারা বছরে এক বিলিয়ন মার্কিন ডলার বৈদেশিক মুদ্রা আয় করেন। তবে এ আয়ের বড় অংশ হুন্ডির মতো অবৈধ পথে দেশে আসে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

শনিবার (২৫ অক্টোবর) রাজধানীর পল্টনে অর্থনৈতিক রিপোর্টারদের সংগঠন-ইআরএফ কার্যালয়ে এক সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন। একই সেমিনারে বিসিকের চেয়ারম্যান জানান, ডিসেম্বরের মধ্যে সাভারের চামড়া শিল্প নগরীর কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগারের কাজ শেষ হবে।

দেশের জিডিপিতে ২৫ শতাংশ অবদান রাখে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প। শ্রমবাজারের সবচেয়ে বড় অংশও জড়িত এখাতের সাথে। দেশের ক্রমবর্ধমনার বেকার সমস্যার সমাধানেও তাই সরকার আত্মকর্মসংস্থানের ওপর জোড় দিচ্ছে। যার বড় লক্ষ্য এসএমই উদ্যোগ সম্প্রসারণ। এসএমই খাতে নতুন করে যোগ হয়েছে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ। প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ নিয়ে অনেকেই শুরু করছেন ফ্রি ল্যান্সিং বা ছোট কোন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান। যার মাধ্যমে হাজার হাজার মাইল দূরে থেকে এখানকার উদ্যোক্তারা তাদের প্রযুক্তি সেবা বিক্রি করতে পারছেন।

সেমিনারে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, ভবিষ্যতের উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রযুক্তি ও এসএমই খাতে প্রশিক্ষণের সুযোগ বাড়াতে সরকার কাজ করছে। সহজে ব্যবসার সূচকে বাংলাদেশ এবছর ৮ ধাপ উন্নতি করলেও তার মতে, এক্ষেত্রে সরকারের চলমান সংস্কার কার্যক্রমের সমন্বয় নিশ্চিত করলে সামনের বছর আরো ইতিবাচক ফলাফল আসবে।

সেমিনারে শিল্প সম্প্রসারণের সাথে সাথে পরিবেশ সুরক্ষার বিষয়টিও গুরুত্ব পায়। বলা হয় অপরিকল্পিত শিল্পায়ন পরিবেশ দূষণের ঝুঁকি তৈরি করে । চামড়াখাতে ৫ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি নিশ্চিতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে সাভারের শিল্পপার্কের সিইটিপি’র বাস্তবায়ন। বিসিকের শিল্পাঞ্চলেও সরকারি সেবা দ্রুত পৌছাতে ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টারে বিসিককে যুক্ত করার আহ্বান জানানো হয় সেমিনারে

 287 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top