সকালে দোকান খুলে মিলল স্কুলছাত্রের রক্তাক্ত লাশ

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ পৌরসভায় মারুফ হোসেন রিয়াদ (১৬) নামে এক স্কুলছাত্রের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

রোববার সকালে পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড মকিমাবাদ গাইন বাড়ির ফরিদ হোসেনের দোকান থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত রিয়াদ গাইন বাড়ির ফারুক মিয়ার বড় ছেলে। সে আমিন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী। ঘটনার পর থেকে দোকানে থাকা কর্মচারি ফারুক হোসেন (২৮) পলাতক। ফারুক পাশ্ববর্তী কচুয়া উপজেলার বাসিন্দা।

স্থানীয় কাউন্সিলর জাহেদুল আজহার আলম বেপারী বলেন, সকালে দোকানের মালিক ফরিদ কর্মচারি ফারুককে ঘুম থেকে জাগাতে এসে দেখেন দোকান বন্ধ। পরে সাটার ভেঙে দেখেন রিয়াদের লাশ। বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশে খবর দিয়েছি। 

নিহত রিয়াদের মা রোজিনা বেগম বলেন, ফারুকের সঙ্গে একটি মোবাইল নাম্বার নিয়ে রিয়াদের হট্টগোলের কথা জানতে পেরেছি। এছাড়া রিয়াদের চাচা শাকিল (১৮) প্রায় দুইমাস আগে একটি ব্রেসলেট নিয়ে বিরোধে ছুরি দিয়ে তাকে আঘাত করে। তখন হাসপাতালে নিয়ে সেলাই দেওয়া হয়। থানাও একটি অভিযোগ দিয়েছি। 

রিয়াদের বাবা ফারুক মিয়া বলেন, সপ্তাহখানেক আগে আমার নতুন বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয় কে বা কারা। আমার সঙ্গে কিসের শত্রুতা? আমার ছেলেকেও খুন করলো। সকাল থেকে শাকিল ও ফারুক পলাতক রয়েছে।

দোকানের মালিকের স্ত্রী শাহিদা বেগম বলেন, ফারুকের সঙ্গে রিয়াদের আগে বন্ধুত্ব ছিল। সম্প্রতি একটু খারাপ সম্পর্ক দেখেছি। দোকানটি ফারুক পরিচালনা করতো। প্রতিদিন বিকালেই দোকানটি বন্ধ করা হয়। 

হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন রনি বলেন, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় দোকান মালিক ফরিদ হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

ওসি বলেন, ধারণা করা হচ্ছে রাতের কোন এক সময় স্কুলছাত্রকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা লাশ দোকানে রেখে গেছে। হত্যার কারণ তদন্ত ছাড়া বলা সম্ভব নয়। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। 

তিনি বলেন, ছেলেটিকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে বলে সবাই ভুল তথ্য দিচ্ছে। তার শরীর এবং গলায় চিকন ধারালো কিছু দিয়ে কয়েকটি আঘাত করা হয়েছে।

 258 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top