মোবাইল কিনে দিতে পারেননি রিকশাচালক বাবা, তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রের আত্মহত্যা

মোবাইল ফোন কিনে না দেয়ায় বাবা-মায়ের সঙ্গে অভিমান করে তৃতীয় শ্রেণির এক স্কুলছাত্র আত্মহত্যা করেছে। নিহত শিশুর নাম আপন মিয়া (১১)।

১৯ জানুয়ারি সন্ধ্যায় কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার সীমান্তঘেঁষা গোরকমণ্ডল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।নিহত আপন অটোরিকশাচালক আইনুল ইসলামের ছেলে। সে গোরকমণ্ডল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।নিহতের পরিবার জানায়, সে নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে রশিতে ঝুলে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।নাওডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুসাব্বের আলী মুসা ও গোরকমণ্ডল ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন নিহত আপনের পরিবারের বরাত দিয়ে জানান, এক সপ্তাহ আগে বাবার কাছে মোবাইল কিনে দেয়ার বায়না ধরে আপন। কিন্তু অটোরিকশাচালক বাবার মোবাইল কিনে দেয়ার সামর্থ্য নেই। তাই কয়েক দিন পর মোবাইল কিনে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন বাবা। মোবাইল কিনে দিতে বিলম্ব হওয়ায় অভিমান করে রোববার সন্ধ্যায় সে নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রাজীব কুমার রায় বলেন, আপনের মরদেহ ঝুলন্ত অবস্থা থেকে নামিয়েছেন তার মা। আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। প্রাথমিকভাবে এটি আত্মহত্যাই মনে হচ্ছে বলে জানান ওসি।তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় আপনের বাবা থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা দায়ের করেছেন। এছাড়া পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই মৃতদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

 243 total views,  2 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top