সংবাদ শিরোনাম:

কলেজছাত্রটি প্রেমে প্রত্যাখ্যাত হয়েছিলেন, হত্যার অভিযোগ পরিবারের

সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলায় রেললাইনের ওপর পড়ে থাকা কলেজছাত্রের লাশ নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগের ঘটনা ঘটেছে। সহপাঠীরা বলছেন, কলেজছাত্রটি প্রেমে প্রত্যাখ্যাত হয়ে ক্ষুব্ধ ছিলেন। পরিবারের দাবি, প্রেমের প্রস্তাব দেওয়ায় মেয়েটির পরিবার হত্যা করে লাশ রেললাইনে ফেলে দিয়েছে। অন্যদিকে, মেয়েটির পরিবার নিজেদের নির্দোষ দাবি করে পাল্টা অভিযোগ জানিয়েছে, কলেজছাত্রটি তাদের মেয়েকে উত্ত্যক্ত করতেন।

পুলিশ জানিয়েছে, কলেজছাত্রের মৃত্যুর ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা করা হয়েছে। তবে ময়নাতদন্তে হত্যার আলামত পাওয়া গেলে নতুন মামলা হবে।

নিহত কলেজছাত্রের নাম শুভজিৎ সানা (১৯)। গত শনিবার রাত আটটায় খুলনার ফুলতলায় রেলওয়ে থানার পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে। গত রোববার রাতে তাঁর লাশ নিজ বাড়ি আশাশুনি উপজেলার খাজরা ইউনিয়নের গজুয়াকাটি গ্রামে এসে পৌঁছায়।

শুভজিৎ বড়দল কলেজিয়েট স্কুলের মানবিক বিভাগ থেকে এবারের এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে সহপাঠীরা জানান, শুভজিৎ কয়েক দিন আগে একই কলেজের এক ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দেন। কিন্তু ওই ছাত্রী প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন। একপর্যায়ে গত শনিবার বেলা ১১টার দিকে কলেজের দোতলার সিঁড়িতে তিনি ওই মেয়ে ডেকে নিয়ে আবারও প্রেমের প্রস্তাব দেন। ছাত্রী তাঁর প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করলে ক্ষুব্ধ হয়ে শুভজিৎ ব্লেড দিয়ে নিজের হাতের কয়েকটি জায়গায় কাটেন। বিষয়টি জানতে পেরে কলেজ অধ্যক্ষ সাহাবুদ্দিন আহমেদ বিদ্যালয়ের ক্রীড়া শিক্ষক ও ওই ছাত্রের মাসতুতো ভাই মণীষ কুমার মণ্ডলকে ডেকে শুভজিতকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়ার পরামর্শ দেন। মণীষ কুমার মণ্ডল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে একটি ভ্যানে করে শুভজিতকে বাড়ি পাঠিয়ে দেন। কিন্তু ওই দিন আর বাড়ি ফিরে যাননি শুভজিৎ। ওই দিন রাত আটটার দিকে খুলনা রেলওয়ে থানার পুলিশ শুভজিতের পরিবারকে মুঠোফোনে জানায়, শুভজিৎ ট্রেনে কাটা পড়ে মারা গেছেন। এরপর খুলনা ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে পরদিন রোববার বেলা একটার দিকে শুভজিতের লাশ তাঁর পিসতুতো ভাই বিজন মণ্ডলের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

কলেজছাত্রের বাবার অভিযোগ, প্রেমের প্রস্তাব দেওয়ায় মেয়ের পরিবারের লোকজন তাঁর ছেলেকে অপহরণের পর হত্যা করে লাশ রেললাইনে ফেলে রেখে গেছে।

 248 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top