আজ বিদ্যা ও জ্ঞানের দেবী সরস্বতীর পূজা

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বিদ্যা, কলা, জ্ঞান ও শুদ্ধতার প্রতীক দেবী সরস্বতীর পূজা আজ বৃহস্পতিবার। আজ শ্রী পঞ্চমী তিথিতে সরস্বতী দেবীর পূজা করে পুষ্পাঞ্জলি দেবেন তার ভক্তরা। অজ্ঞতার অন্ধকার থেকে দূর করে আলোকবর্তিকার পথ দেখাতে কল্যাণময়ী দেবি সরস্বতীকে প্রণতি জানাবেন তারা।

হিন্দু শাস্ত্র অনুসারে চতুর্ভুজা ব্রহ্মার মুখ থেকে আভির্ভূতা শুভ্রবর্ণা বীণাধারিণী চন্দ্রের শোভাযুক্ত দেবীই হলেন সরস্বতী।

মাঘ মাসের শুক্লপক্ষের পঞ্চমী তিথিতে সরস্বতী পূজার আয়োজন করা হয়। তিথিটি শ্রী পঞ্চমী বা বসন্ত পঞ্চমী নামেও পরিচিত। গতকাল সকাল থেকে এ তিথি শুরু হয়েছে। রাজধানীসহ বিভিন্ন মন্দির, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও পাড়া-মহল্লায় পূজার আয়োজন করা হয়েছে।

এদিকে সরস্বতী পূজা উপলক্ষে হিন্দু সম্পªদায়ের সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, ‘জ্ঞানালোকে উদ্ভাসিত হয়ে দেশের প্রতিটি মানুষ অসাম্প্রদায়িকতা, অজ্ঞানতা, কূপমণ্ড‚কতা আর অকল্যাণকর সব বাধা পেরিয়ে একটি উন্নত সমাজ গঠনে এগিয়ে আসবে– এটিই সবার প্রত্যাশা। ’

প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে বলেন, ‘বাংলাদেশে সব ধর্ম ও সম্পªদায়ের মানুষের নিজ নিজ ধর্ম পালনে পূর্ণ স্বাধীনতা রয়েছে। ধর্ম যার যার উৎসব সবার। সব ধর্মের পারস্পরিক এ সম্প্রীতি আগামী দিনে আরও সুদৃঢ় হবে।’ 

সরস্বতী পূজা সাধারণ পূজার নিয়মানুসারে হলেও এই পূজায় কয়েকটি বিশেষ উপাচার যেমন অভ্র, আবির, আমের মুকুল, দোয়াত-কলম, যবের শীষ এসবের প্রয়োজন হয়। আজ পূজার দিনে হিন্দু সম্পªদায়ের শিশুদের হাতেখড়ি, ব্রাহ্মণভোজন ও পিতৃতর্পণ করা হবে।

প্রত্যুষে পূজা-অর্চনা, পুষ্পাঞ্জলিসহ দিনব্যাপী  প্রসাদ বিতরণ, ধর্মীয় আলোচনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, সন্ধ্যা আরতি ও আলোকসজ্জার আয়োজন করা হয়েছে। রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির মেলাঙ্গনে কেন্দ্রীয় পূজামণ্ডপে সরস্বতী পূজার  আয়োজন করেছে ঢাকা মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি।

প্রতি বছরের মতো এবারও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলে সরস্বতী পূজা উপলক্ষে বর্ণাঢ্য আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়া রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠ, রমনা কালীমন্দির ও মা আনন্দময়ী আশ্রম, সুপ্রিম কোর্ট, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ), ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ মন্দির ও স্কুল-কলেজে পূজার আয়োজন থাকছে।

আজ ৩০ জানুয়ারি সরস্বতী পূজার দিনে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে মেয়র ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ভোটের তারিখ নির্ধারণ করে গত বছরের ২২ ডিসেম্বর তফসিল ঘোষণা করেছিল নির্বাচন কমিশন (ইসি)। হিন্দু সম্পªদায়ের নেতৃবৃন্দ নির্বাচন পেছাতে ইসির কাছে আবেদন জানান। তবে ইসি অনড় থাকে। পূজার দিনে নির্বাচন পেছাতে গত ৫ জানুয়ারি হাইকোর্টে করা রিট আবেদনটি গত ১৪ জানুয়ারি খারিজ হয়ে যায়।

এরপর হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন সংগঠন ও শিক্ষার্থী সমাজ আন্দোলনে নামে। এমনকি শাহবাগে অবস্থান কর্মসূচি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনশন কর্মসূচি চলে। নানামুখী দাবির মুখে পিছু হটে ইসি গত ১৮ জানুয়ারি রাতে জানায়, সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ১ ফেব্রম্নয়ারি।

 141 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top