ঢাকা সিটি নির্বাচন: শেষ মুহূর্তে ভোটারদের মন জয়ে মরিয়া প্রার্থীরা

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা শেষ হবে বৃহস্পতিবার রাত ১২টায়। শেষ মুহূর্তে এসেও ভোটারদের নিজের পক্ষে টানতে পাড়া-মহল্লা চষে বেড়াচ্ছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। নগরীর মোড়গুলো আরো আগে থেকেই পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে। অলিগলিতে চলছে মাইকিং। গান, কবিতা ও ছড়ার মাধ্যমেও চলছে প্রচারণা।

প্রধান দুই মেয়রপ্রার্থীর পাশাপাশি তাদের দলের কেন্দ্রীয় নেতা এবং স্থানীয় কর্মী-সমর্থকরাও ছুটছেন ভোটারদের বাড়ি বাড়ি। সবমিলিয়ে প্রচার-প্রচারণায় সরগরম রাজধানী। তাই প্রতিটি সময় কাজে লাগাতে তুঙ্গে প্রচার-প্রচারণা। তবে শেষ সময়ে এসে প্রার্থীদের রয়েছে পাল্টাপাল্টি অভিযোগও।ভোটারদের পক্ষে টানতে বেলা ১১টায় ভাষানটেক বস্তি থেকে প্রচারণার মধ্য দিয়ে শেষ দিনের প্রচারণা শুরু করেন ঢাকা উত্তর সিটির আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম। এ সময় সাংস্কৃতিক অঙ্গণের বিভিন্ন ব্যক্তিত্ব ও চলচ্চিত্রের নায়ক-নায়িকারা যোগ দেন আতিকের পক্ষে ভোট চাইতে। মেয়র নির্বাচিত হলে বস্তিবাসীকে পুনর্বাসন করার প্রতিশ্রুতি দেন আওয়ামী লীগের এই মেয়র প্রার্থী।
 এদিকে ঢাকা উত্তরের বিএনপির প্রার্থী তাবিথ আওয়াল জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়ের মাধ্যমে দিনের কর্যসূচি শুরু করেন। সাংবাদিকদের জানান, নির্বাচন নিয়ে এখনও আশঙ্কা না কাটলেও বিজয়ী হওয়ার বিষয়ে আশাবাদী তিনি।
উত্তরের মতো প্রচারণায় ব্যস্ত দক্ষিণ সিটির প্রার্থীরাও। সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীর গোপীবাগ এলাকা থেকে প্রচারণা শুরু করেন আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। এ সময় তিনি দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের সাথে নিয়ে জনসংযোগ করেন। মেয়র নির্বাচিত হলে নাগরিক সুবিধা নিশ্চিতের পাশাপাশি নগর উন্নয়নে জোর দিবেন বলে জানান তাপস।
রাজধানীর পুরান ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় শেষ দিনের প্রচারণা চালান ধানের ঢাকা দক্ষিণের ধানের শীষ প্রতীকের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ইশরাক হোসেন। এছাড়া নৌকা প্রতিকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ধানমন্ডিসহ রাজারবাগ এলাকায় দুপুরে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন। মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের কাছে শেষ সময়ের প্রচারণা চালাচ্ছেন তিনি।

 245 total views,  2 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top