সংবাদ শিরোনাম:
«» দক্ষিণ আফ্রিকায় ২৪ ঘণ্টায় দ্বিগুণ হয়েছে ওমিক্রনে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা «» আফ্রিকা থেকে কেউ দেশে এলে বোর্ডিং পাস দেওয়া হবে না : পররাষ্ট্রমন্ত্রী «» আগামী বহু বছর ধরে প্রতি বছর করোনা ভাইরাসের টিকা নিতে হবে: ফাইজার প্রধান «» নারী কনস্টেবলের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা ইন্সপেক্টর «» ১৬ ডিসেম্বর দেশের মানুষকে শপথ পড়াবেন প্রধানমন্ত্রী «» দেশ ছেড়ে পালানোর পরিকল্পনা করেছিলেন আব্বাস «» সরকার খালেদা জিয়াকে স্তব্ধ করে দিতে চায়: ফখরুল «» দীর্ঘদিন পর সুপ্রিম কোর্টের শারীরিক উপস্থিতিতে বিচারকাজ শুরু «» মারধর-ধর্ষণচেষ্টা মামলায় পরীমণির নারাজি «» ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে বৃষ্টির আভাস

দড়ি বেঁধে, টেনে হিঁচড়ে বোনসহ শিক্ষিকাকে মারধর

হাঁটুতে দড়ি দিয়ে বেঁধে, টেনে হিঁচড়ে এক স্কুল শিক্ষিকাকে মারধর করছে একদল দুষ্কৃতি। এতে ওই শিক্ষিকার বোন প্রতিবাদ করলে তাকেও হেনস্থা করা হয়। এই ঘটনার এক ভয়াবহ ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় ঘটেছে এই ঘটনা।

দেশটির সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জোর করে জমি অধিগ্রহণের প্রতিবাদ করায় সেখানকার পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেসের পঞ্চায়েত নেতা অমল সরকারের নেতৃত্বে একদল দুষ্কৃতী ওই শিক্ষিকাকে এভাবে হেনস্থা করেছে।

জানা যায়, ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে রাস্তা তৈরির জন্য জমি অধিগ্রহণ। সেখানকার তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েত কর্তৃক রাস্তা নির্মাণের জন্য জোর করে তাদের জমি দখলের প্রতিবাদ করেছিলেন ওই শিক্ষিকা।

এই ঘটনার জেরে রবিবার তৃণমূলের জেলা প্রধান অর্পিতা ঘোষ পঞ্চায়েত নেতা অমল সরকারকে বরখাস্তের নির্দেশ দিয়েছেন। তবে রবিবার গভীর রাত পর্যন্ত এই মামলায় কেউই গ্রেফতার হয়নি।

ইতিমধ্যে ওই ঘটনার ভিডিও দেশটির সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে দেখা যায়, মেরুন রঙের পোশাক পরা স্মৃতিকণা দাস নামের ওই শিক্ষিকাকে মাটিতে ফেলে দেওয়া হয় এবং একজন লোক তার হাঁটু দড়ি বেঁধে রাখে। বাকি একদল লোক তাকে হাত ধরে টানতে টানতে মাটিতে ফেলে দেয়।

এসময় ওই শিক্ষিকার ড় বোন সোমা দাস সেই সময় ঘটনাস্থলেই উপস্থিত ছিলেন। অভিযুক্তদের দিকে তাকিয়ে চিৎকার করেন। এসময় তাকেও মাটিতে ঠেলে ফেলা হয় এবং টেনে হিঁচড়ে তার বোনের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়।

 283 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top