দীর্ঘ ১৭ বছর পর আপিল বিভাগের নির্দেশনায় বিসিএস ভাইভা দিবেন ডা. সুমনা

ডা. সুমনা সরকারের বাড়ি টাঙ্গাইলে। তিনি চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে কর্মরত আছেন। সরকারি চাকরির জন‌্য আবেদনের বয়স পেরিয়েছে তার। ১৭ বছর আগে বিসিএস (স্বাস্থ্য ক‌্যাডার) প্রিলিমিনারি ও লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া মুক্তিযোদ্ধা কোটার পরীক্ষার্থী সুমনা সরকারের মৌখিক (ভাইভা) পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। সরকারি কর্ম কমিশনকে (পিএসসি) এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে সুমনা সরকারের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মোতাহার হোসেন সাজু ও অ্যাডভোকেট সেলিনা আক্তার চৌধুরী। পিএসসির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী শামীম খালেদ।

আইনজীবী মোতাহার হোসেন সাজু ও সেলিনা আক্তার চৌধুরী জানান, ২০০৩ সালে সুমনা সরকার ২৩তম বিসিএসের (স্বাস্থ্য ক‌্যাডার) প্রিলিমিনারি ও রিটেন পরীক্ষায় পাস করেন। কিন্তু মূল শিক্ষা সনদ দেখাতে না পারায় তার ভাইভা পরীক্ষার কার্ড ইস্যু করা হয়নি। তার মতো আরও ২৯২ জন ভাইভা পরীক্ষার কার্ড পাননি। তাদের মধ্যে ১২ জন হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন। ওই রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট তাদের ভাইভা পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশ দেন। পরে ওই ১২জন নিয়োগ পান। এর পর সুমনা সরকার তার একটি প্রবেশন সনদসহ পিএসসি বরাবর দরখাস্ত করেন ভাইভার জন্য। পিএসসি তাকে সুযোগ না দেওয়ায় ২০০৯ সালে তিনিও হাইকোর্টে রিট করেন। ওই রিটের দীর্ঘ শুনানি শেষে ২০১৫ সালে হাইকোর্ট তার ভাইভা পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশ দেন। পরে হাইকোর্টের এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে পিএসসি। চেম্বার জজ আদালত হাইকোর্টের রায়টি স্থগিত করেন। এরপর দীর্ঘ দিন পর আপিল বিভাগ আজ শুনানি নিয়ে পিএসসির আবেদন খারিজ করেন এবং সুমনা সরকারের ভাইভা পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশ দেন। এর ফলে সুমনা সরকার বিসিএস পরীক্ষার ১৭ বছর পর ভাইভা পরীক্ষার সুযোগ পেলেন।

 164 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top