শুরুর বিপর্যয় সামলে দিন শেষে লিটন-মুশফিকের ব্যাটে স্বস্তি

অনলাইন ডেস্ক: দারুণ শুরুর আভাস দিয়ে সাদমান-সাইফের দ্রুত ফেরা, অধিনায়ক মুমিনুল এবং শান্তর ব্যাটিং ব্যর্থতা। শেষে লিটন-মুশফিকের অবিচ্ছিন্ন ইতিহাস গড়া জুটি। পাকিস্তানি বোলারদের দাপুটে শুরুর পর দিনটা পুরোটাই নিজেদের করে নিল বাংলাদেশ। লিটনের শতক আর মুশফিকের দুর্দান্ত অর্ধশতকে প্রথম দিনটা শেষ হল স্বস্তিতেও।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে পাকিস্তানের বিপক্ষে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের অন্তর্ভূক্ত টেস্টটির প্রথম দিনে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৫৩ রান জমা করেছে বাংলাদেশ।

আগামীকাল শনিবার ১১৩ রান থেকে ব্যাটিং শুরু করবেন নিজের ক্যারিয়ারের ৪৩ তম ইনিংসে শতকের দেখা পাওয়া লিটন কুমার দাশ। আর ৮২ রান থেকে শতকের লক্ষ্যে নামবেন টাইগারদের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম।

অবশ্য পাকিস্তানের বিপক্ষে টস জিতে এদিন খুব ভালো শুরু পায়নি মুমিনুল হকের দল। শুরুর তিন ব্যাটসম্যানই তাদের নামের পাশে যোগ করতে পেরেছিল ১৪ করে রান।

অধিনায়ক ও টেস্ট স্পেশালিস্ট ব্যাটার খ্যাত মুমিনুলও ছিলেন ব্যর্থ। সাজিদ খানের বলে মোহাম্মদ রিজওয়ানকে ক্যাচ দিয়ে মাত্র ৬ রান করে ফিরেছিলেন টাইগার অধিনায়ক।

দলীয় অর্ধশতকের আগেই তিনে নামা নাজমুল হাসান শান্তকে ফাহিম আশরাফ ফিরিয়ে দিলে শুরুর ৪ উেইকেট হারিয়ে প্রচণ্ড চাপে পড়ে বাংলাদেশ। অল্প রানে গুটিয়ে দেওয়ারও স্বপ্ন বোধহয় দেখে ফেলেন পাকিস্তানি অধিনায়ক বাবর আজম।

কিন্তু তাকে পুরোপুরি ব্যর্থ প্রমাণ করেন পঞ্চম উইকেট জুটি। পঞ্চাশ, একশ, দেড়শ পেরিয়ে দুজনে ছাড়ায় দুইশ রান।

অবিচ্ছিন্ন জুটিতে প্রথম শতক হাঁকানো লিটন প্রথমবারের মতো দুইশ রানের কোনো জুটিতে সঙ্গী হলেন লিটন।

আর এমন রেকর্ড মুশফিকের ষষ্ঠবার। পঞ্চম উইকেটে পাকিস্তানের বিপক্ষে এটি বাংলাদেশের প্রথম দুইশ রানের জুটি। ২০১১ সালে ঢাকায় সাকিব আল হাসান ও শাহরিয়ার নাফীসের ১৮০ ছিল আগের সেরা।

 68 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top