কক্সবাজারে অপহৃত ৪ স্কুলছাত্রই উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক: শেষ পর্যন্ত কক্সবাজারে অপহৃত হওয়া চার স্কুল শিক্ষার্থীকেই উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে তিন রোহিঙ্গাসহ অপহরণের মূল হোতাদের আটক করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) ও র‌্যাব-১৫ এর সদস্যরা। এরমধ্যে একজন কিশোরীও রয়েছেন।

শনিবার (১১ ডিসেম্বর) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে স্কুল শিক্ষার্থী মিজানুর রহমানকে উদ্ধার করে র‌্যাব। এর আগে শুক্রবার বিকেল ৫টা থেকে সাড়ে ৭টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে টেকনাফের লেদা রোহিঙ্গা শিবিরের পাশের পাহাড় থেকে অপর তিন শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করা হয়।

তারা হলো- মো. কায়সার হামিদ, মিজানুর রহমান নয়ন, জাহিদুল ইসলাম মামুন ও মিজানুর রহমান।

চারজনই ২০২১ সালে এসএসসি পরীক্ষার্থী দিয়েছে। পরীক্ষা শেষে সেন্টমার্টিন বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে পূর্ব পরিচিত দুই রোহিঙ্গা তাদের অপহরণ করে।

এপিবিএন ১৬ এর অধিনায়ক মো. তারিকুল ইসলাম বলেন, উদ্ধার অভিযানে নামার আগে আমরা তিন রোহিঙ্গা নাগরিককে এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আটক করেছি। পরে তাদের দেওয়া তথ্যে পাহাড়ে যৌথ অভিযান শুরু করি।

আটক রোহিঙ্গারা হলেন- টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এইচ ৮ ব্লকের নজির আহমদের ছেলে নুর সালাম (৫০) ও তার মেয়ে রনজিনা বিবি (১৬) এবং মোচনিপাড়া গ্রামের আবুল কাদেরের ছেলে সাদ্দাম মিয়া।

তাদের টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নয়াপাড়া এপিবিএন ক্যাম্পের কমান্ডার শেখ মো. আব্দুল্লাহ বিন কালাম (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার)। অন্যদিকে স্কুল শিক্ষার্থীদের অপহরণকারী জাহাঙ্গীরসহ অপর এক সদস্য র‌্যাবের কাছে আটক রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সেন্টমার্টিন বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে গত ৭ ডিসেম্বর রামুর খুনিয়াপালং ইউনিয়নের পেঁচারদ্বীপ মাঙ্গালা পাড়ার বাতিঘর কটেজ এলাকা থেকে ওই শিক্ষার্থীদের অপহরণ করে রোহিঙ্গারা। এ ঘটনায় দুজনের নাম উল্লেখ করে ৯ ডিসেম্বর টেকনাফ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন স্বজনরা।

 43 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top