পথে প্রান্তরে লাল সবুজের ফেরিওয়ালা

অনলাইন ডেস্ক: বছর ঘুরে এসেছে বাঙালির মুক্তির মাস। দুইদিন পরেই দেশবাসী উদযাপন করবে ৫০তম বিজয় দিবস। বিজয় দিবসকে সামনে রেখে পতাকা নিয়ে নাটোর জেলার পথে-প্রান্তরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন মৌসুমি ফেরিওয়ালারা। দিনটিকে আনন্দঘন করতে জাতীয় পতাকা ছড়িয়ে দেওয়াই যেন তাদের কাজ।

ডিসেম্বর, ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাস এলেই লাল-সবুজের পতাকা হাতে নিয়ে শহরের পথে-প্রান্তরে ঘোরেন তারা। এই ভ্রাম্যমাণ পতাকা বিক্রেতারা রাস্তায় ঘুরে ঘুরে বাঁশের সঙ্গে জাতীয় পতাকা বেঁধে বিক্রি করছেন। শুধু পতাকা নয়, লাল-সবুজের মাথার কাগজের ক্যাপ, রাবার, হাতের ব্যাজ, বুকের ব্যাজ বিক্রি করছেন তারা। তাদেরই একজন ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার করের গ্রামের ফরহাদ হোসেনের ছেলে মাহবুব। তিনি জানান, বিজয়ের মাসে পতাকা বিক্রি করে যেমন আনন্দ পান, তেমনি উপার্জনও ভালো হয়। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শহরের একপ্রান্ত থেকে আরেক প্রান্ত ঘুরে পতাকা বিক্রি করেন।

তিনি জানান, তার কাছে ১০ থেকে ৫০০ টাকা দামের পতাকা রয়েছে। প্রতিদিন ৫০ থেকে ১০০টি পতাকা বিক্রি করেন। প্রতিদিন যে আয় হয়, খরচ বাদে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা পর্যন্ত লাভ হয়।
 
পতাকার ফেরিওয়ালা ফরিদপুরের সদর উপজেলার আবদুল্লাহ সরদারের ছেলে কাউছার আলী (২৪) বলেন, প্রতি বছর ডিসেম্বর মাসের শুরু থেকে ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন জেলায় আমরা পতাকা বিক্রি করে বেড়ায়। লাল-সবুজের পতাকা আমাদের অহংকার। আমি গর্বিত যে, আমি পতাকার ফেরিওয়ালা।

লাল সবুজের আরেক তরুণ ফেরিওয়ালা নরসিংদীর ছেলে মিনার উদ্দিন। তিনি জানান, পতাকা কাঁধে নিয়ে বিক্রি করতে ভালোই লাগে। সব শ্রেণি-পেশার মানুষই পতাকা কিনেন। আয়ও ভালো হয়। এই মাস শেষ হলেই আবার গ্রামে ফিরে যান।

 49 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top