সিরিজ বাতিলের কোনো সুযোগ নেই: পাপন

অনলাইন ডেস্ক: দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলার জন্য এখন নিউজিল্যান্ডে অবস্থান করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। করোনাভাইরাস সংক্রান্ত জটিলতার কারণে এই সিরিজটি বাতিল হওয়ার শঙ্কা দেখা দেয়। তবে সকল জটিলতার অবসান ঘটালো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়ে দিলেন সিরিজ বাতিলের কোনো সুযোগ নেই।

নিউজিল্যান্ড সিরিজ নিয়ে জটিলতা তৈরি হলে শনিবার ক্রিকেট বোর্ডের জরুরি সভার ডাক দেন বিসিবি বস নাজমুল হাসান পাপন। সেখানে তিনি বলেন, ‘ দেশের মাটিতে অস্ট্রেলিয়া সিরিজ থেকে টানা খেলার মধ্যে রয়েছে ক্রিকেটাররা। এখন তারা নিউজিল্যান্ড সফরে রয়েছে। এটি শেষ করে দেশে ফেরার ৪-৫ দিনের মধ্যেই বিপিএল শুরুর সম্ভাব্য তারিখ ঠিক করা আছে। এই ব্যস্ততা চলবে ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত।’

বিসিবি সভাপতি আরও যোগ করেন, ‘আমরা ওদের কোনো বিরতি বা বিশ্রামই দিতে পারছি না। খেলোয়াড়রা সবাই মানসিক ও শারীরিকভাবে খুবই বিপর্যস্ত অবস্থায় রয়েছে। কয়েকজন চেয়েছিল সিরিজটি বাদ দেওয়া যায় কি না, দেশে ফিরে আসা যায় কি না। কিন্তু এটার কোনো সূযোগ নেই, কোনো সুযোগই নেই।’

গত ৯ ডিসেম্বর নিউজিল্যান্ডের উদ্দেশে দেশ ছাড়ে বাংলাদেশ টেস্ট দল। ১০ ডিসেম্বর নিউজিল্যান্ডে পৌঁছে শুরু হয় কোয়ারেন্টিন। সেই হিসেবে কোয়ারেন্টিন শেষে অনুশীলন শুরু হয় এক সপ্তাহের মাথায়। কিন্তু ২ দিন অনুশীলনের পর গোটা দলকে আবারও আইসোলেশনে পাঠানো হয়। করোনা পজিটিভ হওয়ায় স্পিন কোচ রঙ্গনা হেরাথ দল থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন। অধিনায়ক মুমিনুল হকসহ ৪ ক্রিকেটারের কোয়ারেন্টিন বর্ধিত করা হলেও নিউজিল্যান্ড সরকারের নির্দেশনায় পুরো দলই অনুশীলনের অনুমতি হারায়।

এরপর নিউজিল্যান্ড সিরিজ নিয়ে শঙ্কা দেখা দেয়। গুঞ্জন উঠেছিল, বাংলাদেশ দল নিউজিল্যান্ড সফর বাতিল করে দেশে ফিরতে পারে। এ নিয়ে আলোচনায় বসে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (১৮ ডিসেম্বর)।

উল্লেখ্য, সিরিজের প্রথম ম্যাচটি গড়ানোর কথা আছে আগামী ১ জানুয়ারি, বে ওভালে। দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচটি হওয়ার কথা ৯ জানুয়ারি হ্যাগলি ওভালে।

 50 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top