ভাগ্য কী নির্মম, মা এসেছেন ঠিকই তবে লাশ হয়ে

অনলাইন ডেস্ক: ভয়াবহ লঞ্চ অগ্নিকাণ্ডে নিহত মনোয়ারা (৬০) নামের আরও একজনের মরদেহ শনাক্ত করেছেন স্বজনরা। এনিয়ে ৮টি মরদেহ শনাক্ত করা হলো। বাকি ২৯ মরদেহ জানাজা শেষে পোটখালী গণকবরে দাফন করা হবে।

শনিবার সকালে নিহতের মেয়ে ফাতেমা কফিনে লাগানো মায়ের ছবি দেখে মায়ের মরদেহ শনাক্ত করেন।

নিহত মনোয়ারা চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার রূপসা গ্রামের বাসিন্দা। মেয়ে ফাতেমার শ্বশুরবাড়ি বরগুনার ঢলুয়ায় বেড়াতে আসছিলেন তিনি। এ সময় মনোয়ারার সঙ্গে তার স্বামী বেলাল হোসেন ও মেয়ে আমেনা ছিলো। তারা এখন বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

নিহতের মেয়ে ফাতিমা বলেন, ‘মা অনেকদিন ধরেই আমাদের বাড়িতে (শ্বশুরবাড়ি) বেড়াতে আসতে চাচ্ছিলো। কিন্তু কাজের চাপে সুযোগ হচ্ছিলো না। এরপর বৃহস্পতিবার রাতে চাঁদপুর থেকে এমভি অভিযান-১০ লঞ্চে ওঠে। লঞ্চে আগুন লাগলে বাবা ও বোন লাফিয়ে নদীতে নামলেও মা বের হতে পারেনি লঞ্চ থেকে। মায়ের অনেক শখ ছিলো আমার শ্বশুরবাড়ি বেড়াতে আসবে। ভাগ্য কী নির্মম, মা এসেছেন ঠিকই তবে লাশ হয়ে।’

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ৪১ জন নিহত হয়েছে এছাড়া আহত হয়েছে শতাধিকেরও বেশি। নিখোঁজ রয়েছে আরও অনেকে। মৃতদের দেহ শনাক্ত করছে তাদের স্বজনেরা। অনেকের কফিনের উপরে লাগানো রয়েছে মৃতব্যাক্তির ছবি।

 39 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top