সময়মতোই হবে বইমেলা, মানতে হবে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি

অনলাইন ডেস্ক: এগিয়ে আসছে ভাষার মাস, সঙ্গে অমর একুশে বইমেলা। সবকিছু ঠিক থাকলে অমর একুশে বইমেলা-২০২২ এবার ফেব্রুয়ারির প্রথম দিন থেকেই শুরু হবে বলে আগেই জানিয়েছে বাংলা একাডেমি।

আর করোনার সংক্রমণ বাড়লে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে প্রতিপালন করা হবে বলে সর্বশেষ জানিয়েছে তারা।

মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) এই বিষয়টি জানিয়েছেন অমর একুশে বইমেলা পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ও বাংলা একাডেমির পরিচালক ড. জালাল আহমেদ।

তিনি বলেন, সবকিছু ঠিক থাকলে অমর একুশে বইমেলা-২০২২ ফেব্রুয়ারির প্রথম দিন থেকেই শুরু হবে। আমরা সে লক্ষ্যেই কাজ শুরু করেছি। আশা করছি ফেব্রুয়ারির প্রথম দিন প্রধানমন্ত্রী বইমেলা উদ্বোধন করবেন। আর করোনার সংক্রমণ বেশি হলে স্বাভাবিকভাবেই স্বাস্থ্যবিধি আরও কঠোরভাবে প্রতিপালন করা হবে। এছাড়া সংক্রমণ যদি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়, তখন সরকার বইমেলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।

ড. জালাল আহমেদ বলেন, আমরা সবকিছু প্রস্তুত করে রাখছি। নইলে পরে তো আয়োজনটা আমরা করে উঠতে পারবো না। এখন সবদিক থেকেই আমরা কাজ এগিয়ে নিচ্ছি। আমরা আশা করি ২০ থেকে ২২ তারিখের মধ্যে লটারি হয়ে যাবে। তারপর স্টল নির্মাণ হবে। যদিও একটু পিছিয়ে গেছে এবার, তবুও আশা করি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই সব কাজ হয়ে যাবে।

তিনি জানান, এবারের বইমেলার জন্য আমরা মেলা প্রাঙ্গণ সাজানোর সময় বঙ্গবন্ধুর প্রতি যথাযথ শ্রদ্ধা জানাবো এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সমুন্নত রাখবো।

বাংলা একাডেমি কর্তৃপক্ষ জানায়, মেলা অন্যান্যবারের মতো সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই হবে। অমর একুশে বইমেলার চিরায়ত নিয়ম অনুযায়ী মেলা যেভাবে শুরু ও শেষ হয় এবারও সেভাবেই হবে। এবার মূলত দৃশ্যমান বইমেলার পাশাপাশি অনলাইনেও বইমেলার বিষয়টি ভাবা হচ্ছে, যেখানে অনলাইনেও বই বিক্রির ব্যবস্থা রাখা হবে। অনলাইনের বিষয়টিও যেন বিকশিত হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে এগিয়ে যাচ্ছে এবারের বইমেলা।

কর্তৃপক্ষ জানায়, আমরা মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। তাদের কাজের অগ্রগতির বিষয়ে খোঁজখবর নিয়েছি। আমরা আশা করছি এবারও তাদের কাছ থেকে সহযোগিতা পাব। টিএসসি থেকে দোয়েল চত্বর এবং শাহবাগ থেকে দোয়েল চত্বর রাস্তায় এবারও আমরা সম্প্রসারিত জায়গা পাবো। আমরা এখন প্রস্তুতিমূলক কাজগুলো নিয়ে ব্যস্ত।

বাংলা একাডেমি সূত্রে জানা গেছে, একাডেমির কার্যনির্বাহী পরিষদের দুজন প্রতিনিধি, সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, পুলিশ, জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতি, পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির প্রতিনিধিদের নিয়ে আগামী বইমেলা পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়েছে। আর স্টল ও প্যাভিলিয়নের সংখ্যা থাকবে ২০২০ সালের বইমেলা মতোই।

 39 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top