দিনাজপুরে পুত্রবধূকে ফাঁসাতে সন্তানকে গলা টিপে হত্যা করলেন মা

দিনাজপুর সদর উপজেলায় ১৫ দিনের শিশু ইয়ানুর বেবীকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে তার মা নারগিস বেগম (৩০)। সৎ পুত্রবধুকে ফাঁসাতে তিনি নিজের ১৫ দিনের সন্তানকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন বলে আদালতে জানান।

সোমাবার, ২০ জানুয়ারি বিকেলে দিনাজপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইসমাইল হোসেনের আদালতে তিনি এই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

জবানবন্দিতে মা নারগিস বেগম বিচারকের কাছে জানান, তার সৎ পুত্রবধূ আরফাতুন মিমির সঙ্গে তার সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না। প্রায় সময় তাদের মধ্যে বিবাদ লেগেই থাকত। সে কারণে নিজের সন্তানকে সুজি খাইয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে মুখে লবণ ছিটিয়ে দেন। পরে তিনি সৎ পুত্রবধূ আরফাতুন মিমিকে ফাঁসানোর জন্য তার মেয়েকে লবণ খাইয়ে হত্যা করেছে মর্মে মামলা করেন। পুলিশ মামলার আসামি আরফাতুন মিমিকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠায়।

কোতয়ালী থানা পুলিশের (ওসি) তদন্ত বজলুর রশিদ বলেন, প্রথম থেকেই আমাদের সন্দেহ হচ্ছিল যে হত্যার অন্য কোনো রহস্য আছে। সে অনুয়ায়ী মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই দুলাল হককে নির্দেশনা দেয়া হয়। নির্দেশনা অনুয়ায়ী তদন্ত করে এসআই দুলাল হক হত্যার রহস্য উদঘাটন করেন।

 334 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top