ছোট মেয়েকে দাফন, বড় মেয়ের লাশ তখন হাসপাতালে

ছোট মেয়ে মোহনাকে (১৫ মাস) দাফন করে বড় মেয়ে মৌর (৭) লাশ নিতে হাসপাতালে এসেছেন বাবা বিল্লাল সর্দার। বড় মেয়ের লাশও তাকে দাফন করতে হবে। 

যশোরের মণিরামপুর উপজেলার দেবীদাসপুর গ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই শিশুর মৃত্যুতে শোক নেমে এসেছে।

ইটভাটার শ্রমিক বিল্লাল সর্দার জানান, তিনি এবং তার স্ত্রী আমেনা খাতুন দেবীদাসপুর গ্রামে ইটভাটায় কাজ করেন। তাদের দুই মেয়ে এবং এক ছেলে। তারা ইটভাটার পাশে কুড়ে ঘরে বসবাস করেন। তার বাড়ি খুলনার দাকোপ উপজেলার নালিয়া গ্রামে।

রোববার বিকেল ৪টার দিকে মোহনাকে কোলে করে মৌ ভাটার অদূরে রাস্তার পাশের দোকানে যায়। সেখান থেকে ফেরার সময় পিক-আপ তাদের ধাক্কা দেয়। স্থানীয় কয়েকজন তাদের উদ্ধার করে মণিরামপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে মোহনার মৃত্যু হয়। অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় মৌকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

সোমবার সকালে যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৌর মৃত্যু হয়।

বিল্লাল সর্দার জানান, বিকেলে ছোট মেয়ের মৃত্যু হলে তার লাশ নিয়ে বাড়ি যান। সকালে দাফন শেষ হওয়ার পর বেলা ১১টার দিকে বড় মেয়ের লাশ নিতে যশোর জেনারেল হাসপাতালে এসেছেন।

মণিরামপুর থানার এসআই আব্দুর রহমান জানান, পিকআপটি আটক করা হয়েছে। তবে চালক পালিয়ে গেছে। 

 352 total views,  1 views today

প্রকাশিত সংবাদ বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি,পাঠকের মতামত বিভাগে প্রচারিত মতামত একান্তই পাঠকের, তার জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়।
Top